দায়িত্বে না থাকলেও মানুষের পাশে ছিলেন সাবেক কাউন্সিলর কাউছার

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালার মতো জনবন্ধু হয়ে উঠেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার ১০নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর মো. কাউছার মিয়া। কাউন্সিলর থাকাকালে ১০নং ওয়ার্ডবাসীর বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডে ও সবসময় পাশে পাওয়ায় মহল্লাবাসী তার কাজে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। তার জনপ্রিয়তাও এখন তুঙ্গে।

কেন সাবেক কাউন্সিলর কাউসার মিয়ার এতো জনপ্রিয়তা? এবিষয়ে কথা হয় পৌর এলাকার ১০নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা জীবন মিয়া সাথে তিনি জানান, করোনা পরিস্থিতির সংকটময় মুহূর্তে ব্যক্তিগত অর্থায়নে মানুষের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে মানবতার কাজ করেছেন তিনি।
হাসিমুখে মানুষের বিপদে দিনরাত কাজ করে তিনি প্রমাণ করেছেন ক্ষমতা সব কিছু নয়, ইচ্ছা শক্তিই বড়। রাতের আধাঁরে নিজে বহন করে ত্রাণ পৌঁছে দিয়েছেন মানুষের ঘরে ঘরে।

সরেজমিনে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, করোনার মহামারীতেও সাবেক কাউন্সিলর কাউসার মিয়ার উদ্যোগে ১০নং ওয়ার্ড বাসিন্দারা ব্যাপক ত্রাণ সহায়তা পেয়েছেন। শুধু তাই নয়, এমন কোনো মানুষ নেই যারা তার কাছে সাহায্যের জন্য গিয়ে খালি হাতে ফিরে এসেছেন।

নির্বাচন কালেই নয় তিনি প্রতিদিন মানুষের খোঁজ খবর রাখেন। জরুরী গুরুত্বপূর্ণ কোনো বিষয় হলে মহল্লাবাসীর সাথে পরামর্শ করে সিদ্ধান্ত নিতেন। কাউন্সিলর থাকাকালে যুবকদের বড় একটি অংশকে মানসিক ও আর্থিকভকবে সহায়তা করে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন তিনি। মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত উদ্যোগে কঠোর অবস্থানে থেকে বিগত দিনগুলোতে নিয়মিত উঠান বৈঠকসহ সচেতনতামূলক কাজ করেছেন।

এদিকে, দলমত নির্বিশেষে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ব্যক্তিগতভাবে ব্যাপক ত্রাণ ও আর্থিক সহায়তা করা মো. কাউছার মিয়া প্রতিদিন দুপুরে রান্না করা খাবার, ইফতার সামগ্রী, জরুরী সেবাসহ যাকে যেভাবে সম্ভব সাহায্য করছেন। আর এই কর্মকান্ডই তাকে জনবন্ধুতে রূপান্তরিত করেছে।

সাবেক কাউন্সিলর মোঃ কাউছার মিয়ার সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি কোন পদে কোথায় আছি বড় কথা নয়, মানুষের জন্য কাজ করবো এটাই বড় কথা। এলাকায় আমার জনপ্রিয়তা কেমন আপনারা খোঁজ নিলেই জানতে পারবেন।

তিনি বলেন, দেশের বিভিন্ন সংকটময় মূহুর্তে ফটোসেশনের নামে রাজনীতি বাদ দিয়ে জনগণের পাশে থেকেছি। আমি কাউন্সিলরের দায়িত্বে না থাকলেও ব্যক্তিগতভাবে যতটুকু পারি মানুষের পাশে সবসময় থাকবো। অতীতেও সততা ও নিষ্ঠা দিয়ে মানুষের জন্য কাজ করে তাদের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। নেতৃত্ব হচ্ছে আল্লাহর দান। ভাগ্যে যদি জনপ্রতিনিধি হয়ে কাজ করার সুযোগ থাকে, তাহলে করবো। কিছুটা কষ্টতো অবশ্যই আছে, তবে সকল কষ্ট দূরে ঠেলে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চাই।

জনগণের কল্যাণে কাজ করা মো. কাউছার মিয়া আরও বলেন ১০নং ওয়ার্ড অবহেলিত ওয়ার্ড হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। এখানে নাগরিক সুযোগ সুবিধা তেমন নেই। আমি নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব নিয়েই রাস্তা ঘাটের উন্নতি, আর্বজনার স্তুপ, মাদক প্রতিরোধে ব্যবস্থা গ্রহণ, সামাজিকভাবে ওয়ার্ডবাসীকে সচেতন করাসহ জনগণের কল্যাণে সবধরণের নাগরিক সুবিধা সম্পন্ন একটি আধুনিক ওয়ার্ড গড়ে তোলার প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাব।

Related posts

Facebook Comments

Default Comments

Leave a Comment