ব্যর্থ প্রশাসন এখনো বহাল: সাংসদ মোকতাদিরের ক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার:

২৬ মার্চ। সরকারি-বেসরকারিভাবে পালিত হচ্ছে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর অনুষ্ঠান। হঠাৎ উত্তপ্ত হয়ে পড়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া। লাঠিসোটা হাতে চলে তান্ডব। করা হয় অগ্নিসংযোগ। এ অবস্থা চলে তিন দিন। ২৮ মার্চের তান্ডবে লন্ডভন্ড হয়ে যায় দেশের অন্যতম এ জেলা শহরটি।

একমাসেও আগের মতো করে দাঁড়াতে পারেনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া। বেশ কয়েকটি সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে সেবা প্রদান বন্ধ রয়েছে। স্টেশন ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় অনির্দিষ্টকালের জন্য ট্রেন চলাচলও বন্ধ করে রাখা হয়েছে। ব্যক্তিগতভাবে ক্ষতিগ্রস্থরাও এখন পর্যন্ত ঘুরে দাঁড়াতে পারেন নি।

তান্ডব দমাতে প্রশাসনের ব্যর্থতার কথা আলোচনা হয় শুরু থেকেই। তান্ডব পরবর্তী সময়ে গ্রেপ্তার বিষয়েও পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। রবিবার সকাল নাগাদ ৩৫৯ জন গ্রেপ্তার হলেও দুই ইমাম ছাড়া উল্লেখযোগ্য কাউকে এ তালিকায় দেখা যায় নি। ব্যর্থ ওই প্রশাসন এখনো রয়েছে বহাল। এ নিয়ে ক্ষোভ দিনকে দিন বাড়ছে।

এদিকে তান্ডবের এক মাস সময়ের কাছে এসে রবিবার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল হোয়াইট নিউজ টুয়েন্টি ফোর ডটকম এর ভার্চুয়াল লাইভ অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য র. আ. ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেন। ঘটনার সময় প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে শুরুর সময়ের মতো এখনো প্রশ্ন তুলেন। পাশাপাশি লাঠিসোটা হাতে তুলে দেয়া মাদ্রাসাগুলোতে যেন কোনো ধরণের সহায়তা না করা হয় সে আহবানও তিনি জানান।    
বাচিক শিল্পী মনির হোসেনের পরিচালনায় হোয়াইট নিউজ টুয়েন্টি ফোর ডটকম এর ভার্চুয়াল লাইভ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন, সাহিত্য একাডেমীর সভাপতি কবি জয়দুল হোসেন, আইডিয়াল রেসিডেন্সিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ সোপানুল ইসলাম সোপান, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড.লোকমান হোসেন, প্রেসক্লাবে সাবেক সাধারণ সম্পাদক দিপক চৌধুরি বাপ্পি, মহিলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত, জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক এ এস আর এম ওসমান গনি সজিব, সমাজকর্মী মমিনুল ইসলাম বাবু, সময় টিভির স্টাফ রিপোর্টার উজ্জল চক্রবর্তী, যমুনা টিভির জেলা প্রতিনিধি সফিকুল ইসলাম, প্রথম আলোর প্রতিনিধি শাহাদাত হোসেন, নারী নেত্রী নন্দিতা গুহ, বাউনবাইরার কতা সংগঠনের সভাপতি ডা.মাহাবুবুর রহমান এমিল, ডা.পাবেল, ঢাকা পোস্টের প্রতিনিধি আজিজুল সঞ্চয়, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল, সিনিয়র সহ সভাপতি সুজন দত্ত ড্রিম ফর ডিজিবিলিটির সভাপতি হেদায়েতুল আজিজ মুন্না, প্রভাষক দ্বিপ রায় প্রমূখ

এদিকে তান্ডবের নিন্দা জানিয়ে পদত্যাগ করেছেন হেফাজত ইসলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কমিটির যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় সদস্য মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী। এ নেতার পদত্যাগ তান্ডবে হেফাজতের জড়িত থাকার প্রমাণ মিলে অভিযোগ এনে জেলা ছাত্রলীগের এক বিবৃতিতে হেফাজত ইসলামের জেলা কমিটির সভাপতি ও সাধারন সম্পাদককে গ্রেপ্তারের দাবি জানানো হয়েছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে আসার প্রতিবাদে আন্দোলনকে কেন্দ্র করে গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত তিনদিন হেফাজতের কর্মসূচি চলাকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক তান্ডব চালানো হয়। হামলা ও অগ্নিসংযোগে ক্ষতিগ্রস্থ হয় শতাধিক সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, বাড়িঘর। সেবা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের। তান্ডবের সময় হওয়া সংঘর্ষে মারা যায় অন্তত ১৩ জন।

Related posts

Facebook Comments

Default Comments

Leave a Comment